শয়তানের ডায়েরি – ১

আজকাল বসে বসেই দিন কাটে। নিজেকে আর কিছুই করতে হয় না। মাঝে মাঝে বিরক্ত লাগলে বাইরে বের হয়ে মানুষের কর্মকান্ড দেখি।

আজ যেমন ঢাকা মেডিকেলের ইমার্জেন্সির গেটে দাঁড়িয়ে আছি প্রায় এক ঘন্টা হলো। অপেক্ষা ব্যাপারটা আমার খুবই অপছন্দ হলেও আজ খারাপ লাগছে না। যদিও বেশিক্ষন এক জায়গায় দাঁড়িয়ে থাকলে লোকজন আড়চোখে তাকাতে শুরু করে। সেজন্য গায়ের আলখেল্লাটাও দায়ী। এই যুগে এমন আলখেল্লা কেউ পড়ে না। সে যাক। আর বেশিক্ষন অপেক্ষা করতে হবে না মনে হচ্ছে। ওইতো একটা এম্বুলেন্স এসে গেছে। পুড়ে বীভৎস হয়ে যাওয়া ২টা লাশ বের হলো ভেতর থেকে। আরও দু’টো এম্বুলেন্স এসে দাঁড়ালো।

ঈশ্বর যেদিন মানুষকে সেরা সৃষ্টি বলে ঘোষনা দিলেন সেদিন ভীষন ক্ষুব্ধ হয়েছিলাম। তবে এখন বুঝতে পারি মানুষ আসলেই আমার চেয়ে অনেক অনেক বেশি উঁচুদরের সৃষ্টি। নাহলে স্বজাতিকে জ্যান্ত আগুনে পুড়িয়ে আনন্দ করে আর কোন প্রানী?